আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হচ্ছে পাকিস্তান

শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হচ্ছে পাকিস্তান

12
0

এবারের বিশ্বকাপে শিরোপার রেসে এগিয়ে থাকা দলের মধ্যে অন্যতম হলো অস্ট্রেলিয়া। আর সেই অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হচ্ছে আনপ্রেডিক্টেবল পাকিস্তান।

ইতিমধ্যে দুই দল ই তিনটি করে ম্যাচ খেলে ফেলেছে। যার মধ্যে অস্ট্রেলিয়া জিতেছে আফগানিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ এর বিরুদ্ধে।

অন্যদিকে পাকিস্তান ৩ ম্যাচের মধ্যে হেরেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে। শ্রীলঙ্কার সাথে বৃষ্টির কারনে ম্যাচ পারিত্যাক্ত হয়েছিলো। ইংল্যান্ডের সাথে জিতেছে পাকিস্তান।

নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে টন্টনে আজ মুখোমুখি হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান। যথারীতি এ ম্যাচেও আছে বৃষ্টির চোখরাঙানি। তবে ম্যাচ ভাসিয়ে দেয়ার মতো ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস নেই।

ভারতের কাছে হারলেও অস্ট্রেলিয়ার আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরেনি। তিন ম্যাচে দুটি করে ফিফটি করেছেন দলের দুই ব্যাটিং স্তম্ভ স্টিভেন স্মিথ ও ডেভিড ওর্য়ানার। ভারতের বিপক্ষে তারা ফিফটিকে সেঞ্চুরিতে রূপ দিতে পারলে পাশার দান উল্টে যেতে পারত। ওই ম্যাচে ৮৪ বলে ৫৬ রানের ধীরগতির ইনিংসের জন্য সমালোচিত হয়েছেন ওয়ার্নার।

৩৫৩ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়ায় ৪৮টি ডট বল খেলার যন্ত্রণা লাঘব করতে আজ ঝড় তোলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন অসি ওপেনার। সতীর্থরাও তার পাশে আছেন।

এক হারে উদ্বেগের কোনো কারণ দেখছেন না অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ‘কোনো কিছুই পরিবর্তন করার দরকার নেই আমাদের। ছোটখাটো কিছু বিষয় ঠিক করে নিলেই চলবে। আগের আত্মবিশ্বাস নিয়েই আমরা পাকিস্তানের বিপক্ষে নামব।’

ওয়ানডেতে দু’দলের আগের ১০৩ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার ৬৭ জয়ের বিপরীতে পাকিস্তানের জয় মাত্র ৩২টি। দুই মাস আগে সংযুক্ত আরব আমিরাতে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৫-০তে হোয়াইট ওয়াশ হয়েছেন সরফরাজরা।

সবমিলিয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে শেষ ১৪ ম্যাচের মাত্র একটিতে জিতেছে পাকিস্তান। কিন্তু স্বাগতিক ইংল্যান্ডতে হারিয়ে মোমেন্টাম পেয়ে যাওয়ায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বিবর্ণ রেকর্ড নিয়ে একেবারেই ভাবিত নন পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ।

‘অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খুব বেশি ম্যাচ আমরা জিতিনি। কিন্তু ইংল্যান্ডের বিপক্ষেও আমাদের রেকর্ড খুব ভালো ছিল না। শেষ পর্যন্ত ইংল্যান্ডকে আমরা হারিয়েছি। এতে দলের মধ্যে একটি ইতিবাচক আবহ তৈরি হয়েছে। আমরা এখন কোনো দলকেই ভয় পাই না। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেও আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলবে পাকিস্তান। প্রতিপক্ষকে সমীহ করলেও আমরা প্রস্তুত’-যোগ করেন সরফরাজ।

ওয়াহাবের মতোই নাটকীয়ভাবে বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পাওয়া আমিরও মুগ্ধতা ছড়াচ্ছেন। দুই ম্যাচে নিয়েছেন পাঁচ উইকেট। ফিক্সিং-কাণ্ডে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ২০১৬ সালে এই টন্টনেই প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ফিরেছিলেন আমির। ফেরার ম্যাচে দারুণ বোলিংয়ে সমারসেটের বিপক্ষে নিয়েছিলেন তিন উইকেট। সেই সুখস্মৃতিই আজ ফিরিয়ে আনতে চাইবেন আমির।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here