আন্তর্জাতিক ক্রিকেট প্রধান কোচ হলে বিসিবি’র পদ ছেড়ে দিবেন সুজন

প্রধান কোচ হলে বিসিবি’র পদ ছেড়ে দিবেন সুজন

4
0

আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপে ব্যার্থ হয়ে ফিরেছে বাংলাদেশ দল। তারপর পরই বরখাস্ত করা হয়েছে বাংলাদেশ সাবেক কোচ
স্টিভ রোডসকে। এখন গুঞ্জন উঠেছে বাংলাদেশের পরবর্তী কোচ হতে যাচ্ছেন বিসিবি পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন।

তবে খালেদ মাহমুদ সুজন জানিয়েছেন তিনি বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রধান কোচের দ্বায়িত্ব পেলে বিসিবি পদ ছেড়ে দিবেন।

এর আগে খালেদ মাহমুদ ২০১৭ সালে লংকান কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহে পদত্যাগ করলে দলের কোচের দায়িত্ব পালন করেন। তবে জিম্বাবুয়ে, শ্রীলঙ্কার ও বাংলাদেশের ত্রিদেশীয় সিরিজে কোচের দ্বায়িত্ব পালন করেন তিনি। ওই সিরিজে বাংলাদেশ ফাইনালে শ্রীলংকার কাছে পরাজিত হয়।

এছাড়া টি-২০ এবং টেস্ট সিরিজে খারাপ করে বাংলাদেশ। সমালোচনা সহ্য করতে হয় খালেদ মাহমুদকে। ২০১৯ বিশ্বকাপের পর আবার কোচ শূন্য বাংলাদেশ দল। প্রধান কোচ স্টিভ রোডসকে বিদায় করে দেওয়া হয়েছে। শ্রীলংকা সফরের আগে তাই কোচ না পেলে অন্তবর্তী কোচ হিসেবে কাউকে নিয়োগ দিতে হবে।

সুজন বলেন, ‘বিসিবি যদি আমাকে লম্বা সময়ের জন্য প্রধান কোচের দায়িত্ব দেয়। তবে আমি বিসিবি’র পরিচালকের পদ ছেড়ে দিতে রাজী আছি। তাতে করে একাধিত পদে থাকার স্বার্থের দ্বন্দ্ব থাকবে না। গতবার যখন দায়িত্ব নেয় তখন অনেক কথা হয়েছে। কারণ আমি বোর্ডের একজন পরিচালক। তাই আমাকে কোচের দায়িত্ব দিলে সমালোচনা এড়াতে একটা দায়িত্ব ছেড়ে দেব। তবে আমি বোর্ডের একজন হয়ে চাকরি করি। বোর্ডের সিদ্ধান্ত প্রণেতা নই আমি।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধান কোচ হলে তখনও আমি বোর্ডের চাকরি করবো। তাতে করে বোর্ড আমার থেকে জবাবদিহিতা নিতে পারবে। এখনও বোর্ডের চাকরি করছি। কিন্তু দুটি কাজ একসঙ্গে করলে সমস্যা দেখা দেবে। কোচিং আমার প্যাশন। সে জন্য আমি দীর্ঘমেয়াদি একটি চাকরি ছাড়তে রাজী আছি।’ দলের দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা বলতে কত সময় বোঝাচ্ছেন এমন প্রশ্নে মাহমুদ জানান, ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্ত। অন্ততপক্ষে ২০২০ টি-২০ বিশ্বকাপ। কারণ কোচ হিসেবে দলগুছিয়ে নিতে তার সময় লাগবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here